মোবাইল ব্যাংকিং

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম [এখানে ক্লিক করে দেখুন]

বন্ধুরা ,  আজকে আমি আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করব কিভাবে আপনারা ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন।  আপনারা কি জানেন বিকাশ একাউন্ট কি এবং বিকাশ একাউন্টের মাধ্যমে কি কি কাজ সম্পন্ন করা যায় ?

 বর্তমান সময়ে টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে বিকাশ একাউন্টের ব্যবহার।  উল্লেখযোগ্য বিকাশের গ্রাহক সংখ্যা রয়েছে প্রায় দেড় লাখ । প্রতিবছর ব্র্যাক ব্যাংকের বিকাশ ব্যবহার করে প্রতিদিন কোটি টাকার লেনদেন সম্পন্ন হয়। আপনি চাইলে ঘরে বসেই আপনার বিকাশ একাউন্ট তৈরি করে নিতে পারেন ।

 সেজন্য আপনাকে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।  আজকে আমরা এ আর্টিকেল এর মাধ্যমে সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপন করব । আর্টিকেলটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন নিন । ঘরে বসে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খোলা যায় সে তথ্য জেনে নিন ।

আগে মানুষের বিকাশ একাউন্ট খোলা লাগত এজেন্টের নিকট গিয়ে। কিন্তু আপনারা এখন বর্তমানে ঘরে বসেই খুব কম সময়ের মধ্যে আপনার বিকাশ একাউন্ট তৈরি করে নিতে পারবেন।  এক্ষেত্রে আপনাদের একটি স্মার্টফোন ইন্টারনেট সংযোগ এবং যার নামে বিকাশ একাউন্ট খুলবেন তার সেলফি প্রয়োজন হবে।

তাহলে আপনারা প্রথমে অবশ্যই আপনার গুগল প্লে স্টোর থেকে বিকাশের অফিশিয়াল অ্যাপ টি ডাউনলোড করে আপনার ফোনে ইন্সটল করে নিবেন।  তারপর আপনারা রেজিস্টার নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন ।

সেখানে গিয়ে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের দুই পাশের ছবি তুলতে হবে এবং প্রয়োজনীয় তথ্য সাবমিট করতে হবে।  তারপর আপনার একটি সেলফি প্রয়োজন হবে । যেটা দিয়ে আপনার এনআইডি কার্ড ভেরিফিকেশন করা যায়।  সেলফি তোলার পর পরই আপনার বিকাশ একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

আপনার বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়মাবলী সম্পর্কে জানতে চাচ্ছিলেন ।  এরই ধারাবাহিকতায় আমি আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে আপনার বিকাশ ঘরে বসে পার্সোনাল বিকাশ একাউন্ট খুলবেন।  বিকাশ দুই ধরনের হয়ে থাকে । একটি হচ্ছে পার্সোনাল একাউন্ট ।

তবে আপনার পার্সোনাল একাউন্ট খুলতে হলে আপনাকে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে । পার্সোনাল একাউন্ট খোলার পর আপনারা পাচ্ছেন বিভিন্ন ধরনের আকর্ষণীয় অফার। বিকাশ একাউন্ট খুলতে হলে আপনাকে অবশ্যই বিকাশের অফিশিয়াল অ্যাপ টি ডাউনলোড করতে হবে এবং আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের দুই পাশের ছবি দিতে হবে।

নিজের এক কপি ছবি সেলফি হিসাবে আপলোড করতে হবে । তারপর আপনার ফোনে একটি ভেরিফিকেশন কোড আসবে । ওটিপি সঠিকভাবে সাবমিট করার পর আপনাকে বিকাশের পিন নাম্বার সেট করতে হবে। ব্যাস,  হয়ে গেল আপনার বিকাশ একাউন্ট।

হ্যালো বন্ধুরা ,  আপনারা অনেকেই জানতে চাচ্ছিলেন বিকাশ অ্যাপ এর সুবিধা অসুবিধা।  বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে আপনারা যে কোন একটি প্রিয় নাম্বারে সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট চার্জ সুবিধা পাবেন।  এক্ষেত্রে বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে আপনারা প্রিয় নাম্বারে 14 টাকা 90 পয়সা সব সুবিধা পাবেন ।

কিন্তু প্রিয় নাম্বার ছাড়া অন্য নাম্বারে ক্যাশ আউট করার ক্ষেত্রে 18 টাকা 50 পয়সা চার্জ প্রযোজ্য হবে। হ্যালো বন্ধুরা এ আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানিয়ে দিলাম । যে কিভাবে আপনারা ঘরে বসে ক্যাশ এবং বিকাশ এপ এর সুবিধা সমূহ।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button