টেকনোলজি

ই পাসপোর্ট পুলিশ ভেরিফিকেশন করার নিয়ম এখানে ক্লিক করে দেখুন

আপনারা কি জানেন পাসপোর্ট পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই পুলিশ ভেরিফিকেশন করতে হবে । আপনার নামে কোন রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা অথবা বিদেশে গমনের বাধা আছে কিনা । সেটা জানার জন্য অবশ্যই আপনাকে পুলিশ ভেরিফিকেশন করতে হয় ।

ইনভেস্টিগেশন অফিসার ক্লিয়ারেন্স রিপোর্ট দেয়ার পর পরই কেবল আপনার আবেদন ঢাকার পাসপোর্ট অফিসে যাবে। পুলিশ ভেরিফিকেশন নেগেটিভ  রিপোর্ট করলে আপনার পাসপোর্ট আবেদনের যাত্রা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস পর্যন্ত থাকবে ।

মানে পাসপোর্ট পাবেন না। আপনাকে পুলিশ ভেরিফিকেশন করা খুবই জরুরি । একজন নাগরিক হিসাবে আপনার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গায় যেমন পাসপোর্ট চাকরিতে জয়েন লাইসেন্স করার সময় আপনার দেওয়া।

তথ্য কতটুকু সত্যতা যাচাই করার জন্য একজন পুলিশ অফিসারের দায়িত্ব দেওয়া হয়। তিনি আপনার এলাকায় গিয়ে এসব তথ্য যাচাই করে দেখেন । আর এই প্রক্রিয়াকে বলা হয় পুলিশ ভেরিফিকেশন । তাই পাসপোর্টের ক্ষেত্রে পুলিশ ভেরিফিকেশন করা আবশ্যক।

আপনার অনেকে জানতে চাচ্ছেন যে,  কিভাবে পুলিশ ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করা যায় । আজকে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করবো এই পাসপোর্ট পুলিশ ভেরিফিকেশন এক জায়গায় কিংবা দুই জায়গায় হতে পারে।

  আপনি যদি বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা দিয়ে থাকেন তবে শুধুমাত্র এক জায়গায় ভেরিফিকেশন হবে। তবে আপনার যদি বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা আলাদা হয় তাহলে পুলিশ ভেরিফিকেশন করার জন্য আপনাকে দুই জায়গায় পুলিশ অফিসারের কাছে দায়িত্ব দেওয়া হবে।

এ ক্ষেত্রে স্থায়ী ঠিকানা পুলিশ ভেরিফাই করতে গেলে সাধারণ নাগরিক সনদপত্র বা চেয়ারম্যান প্রত্যয়ন পত্র এবং ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি দিতে হয়।  একইভাবে আপনার বর্তমান ঠিকানা পুলিশ আসার পর জাতীয় কাগজপত্র চাইবে। আপনি যদি ছাত্র হয়ে থাকেন তাহলে স্টুডেন্ট আইডি কার্ড এর মূল কপি দেখার প্রয়োজন হতে পারে।

আপনার মনে আসতে পারে পুলিশ ভেরিফিকেশন করতে হলে কত টাকা প্রয়োজন হয় । পাসপোর্ট এর জন্য যেহেতু পুলিশ ভেরিফিকেশন করতেই হবে তাহলে আপনাকে জানতে হবে পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য কি কি করতে হবে এবং কত টাকা খরচ করতে হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা অস্ত্র লাইসেন্স করার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট খুবই দরকার । এজন্য আপনাকে জানতে হবে কত টাকা প্রয়োজন হবে । পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর জন্য 500 টাকা করা হয়েছে ।

পুলিশ ভেরিফিকেশন টাকা  বাংলাদেশ ব্যাংক সোনালী ব্যাংকের যেকোন শাখা থেকে 500 টাকা মূল্যমানের ট্রেজারী চালান অথবা অনলাইনে ক্রেডিট কার্ড কিংবা সাহায্য প্রদান করতে পারেন।

আপনার মনে আসতেই পারে যে পুলিশ ভেরিফিকেশন করতে হলে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হয় । সে তথ্য আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব । পুলিশ ভেরিফিকেশন দুইজন সম্পন্ন হয় । আপনি যদি স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা আলাদা হয়ে থাকে তাহলে

আপনি দুই জায়গাতেই পুলিশ ভেরিফিকেশন করা হবে । কিংবা আপনি যদি শুধুমাত্র স্থায়ী ঠিকানায় বসবাস করেন  শুধুমাত্র স্থায়ী ঠিকানায় পুলিশ ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হবে। পুলিশ ভেরিফিকেশনের তদন্ত সময় প্রার্থীকে সাধারণত থানায় যেতে হয় না ।

কারণ তদন্তকারী কর্মকর্তা গোপনে ও প্রকাশ্যে প্রার্থীর উল্লেখিত ঠিকানা সমূহ সরেজমিনে তদন্ত করে থাকেন । যেমন প্রার্থীর স্থায়ী ঠিকানার স্বপক্ষে সে বাড়ির দলিল কপি,  বিদ্যুৎ বিল,  টেলিফোন বিল , ইত্যাদি প্রয়োজন হয়।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button