স্বাস্থ্য

এলার্জি থেকে মুক্তির উপায়, ঔষধ, দোয়া [ক্লিক করে দেখুন]

যেহেতু চলে এসেছে গ্রীষ্মকাল। এ সময়ে অন্যান্য রোগের পাশাপাশি শরীরে এলার্জির মতো চর্ম রোগ হতে পারে। আপনার অনেকেই এলার্জি থেকে মুক্তির উপায় সম্বন্ধে জানতে চাচ্ছিলেন। আজকে আপনাদের জন্য

আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে আমরা জানাবো। কিভাবে আপনার অ্যালার্জি সহ বিভিন্ন ধরনের চর্মরোগ থেকে রেহাই পাবেন। আজকে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে সকল তথ্য পরিপূর্ণভাবে জানাবো যে।

কিভাবে এলার্জি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। সাধারণত যেসব খাবারে সাধারণত যেসব খাবারে এলার্জি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। সেগুলো  দূরে রাখতে হবে। যেমনঃ ইলিশ মাছ, গরুর মাংস  বেগুন, শিম, বিভিন্ন ধরনের শাক আছে।

যেগুলো, খেলে শরীরে অ্যালার্জি হতে পারে। খাবার গুলো থেকে দূরে থাকতে হবে। আজকে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে সকল তথ্য ভালোভাবে জানাবো। আশা করি আপনাদের কাছে খুবই কাজে দেবে।

যাদের শরীরে এলার্জি সমস্যার রয়েছে। সেই তথ্যগুলো আজকে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে জানাব। যাদের অ্যালার্জি রয়েছে তাদের খুব সাবধানে থাকতে হয়। এলার্জি হলে শুরু হয়ে যায় চুলকানি। চোখ লাল হয়  ত্বকের লালচে দানা ওঠে।

এলার্জি আছে এমন অনেকেরই ঘর পরিষ্কার করলে ত্বকে চুলকানি শুরু হয়ে যায়। আবার অনেকে আছেন সামান্য ধুলা সংস্পর্শে এলে এলার্জি শুরু হয়ে যায়। কোন কোন অ্যালার্জিতে  জীবন সংশয় দেখা দিতে পারে।

ধুলাবালি ছাড়াও কোনো বস্তুর প্রতি অতি সংবেদনশীলতার কারণেও অ্যালার্জি হতে পারে। যেমন ধাতব অলংকার, প্রসাধনসামগ্রী, কোনো রাসায়নিক, ডিটারজেন্ট, সাবান, পারফিউম, প্লাস্টিকের তৈরি গ্লাভস বা বস্তু,

গাছ, ফুলের রেণু, ওষুধ, সিনথেটিক কাপড় ইত্যাদি। এলার্জির মত চর্মরোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে আপনাকে বেশ কিছু তথ্য এবং সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

যারা ডিটারজেন্ট সাবান এলার্জি তিনি বাসন-কোসন কাপড়-চোপড় ধোয়ার সময় হাতে গ্লাভস পড়ে নেবেন। যারা অলংকার এলার্জি তিনি তা ব্যবহার থেকে বিরত থাকবেন। এ ক্ষেত্রে এসব তালিকা করতে পারেন।

যেসব খাবারে এলার্জি বৃদ্ধি পায়, সেসব খাবার গুলো থেকে খাওয়া থেকে দূরে থাকতে হবে। এছাড়া আপনারা ঘরোয়াভাবে এলার্জির জন্য এবং চর্ম রোগ থেকে মুক্তি পাবাত জন্য জন্য কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন।

লাল হয়ে চুলকানির ক্ষেত্রে ঠান্ডা সেঁক বা ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করলে খানিকটা আরাম পাওয়া যায়। এ সময় বাতাস চলাচল করে এমন পাতলা সুতি কাপড় পরুন। প্রসাধনসামগ্রীতে অ্যালার্জি থাকলে

রাসায়নিকযুক্ত প্রসাধনসামগ্রীর ব্যবহার এড়িয়ে চলতে হবে। বন্ধুরা, আপনারা অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন যে চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় কিভাবে জানবেন। আজকে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের সামনে জানাবো যে।

চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়। সাধারণত গ্রীষ্মকাল এবং বর্ষাকালে এবং অতিরিক্ত গরমের কারণে চুলকানির প্রাদুর্ভাব দেখা যায়।ব্যাকটেরিয়া আক্রমণের কারণে চুলকানি হতে পারে।

এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সব সময় ফ্রেশ থাকতে হবে এবং নিয়মিত ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করতে হবে। চুলকানি থেকে স্বস্তি পেতে হলে গোসলের পানিতে সামান্য ডেটল মিশিয়ে নিন।

এটা সামান্য কুসুম গরম পানিতে সামান্য ডেটল মিশিয়ে সেটা দিয়ে গোসল করে নিতে পারেন। এক্ষেত্রে চুলকানি থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পেতে পারেন। এছাড়া বেশি সমস্যা হলে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিক ওষুধ সেবন করা যেতে পারে।

তাহলে বন্ধুরা, এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সামনে সকল তথ্য  জানিয়ে দিলাম। আশা করি বুঝেছেন। আরও যদি কোনো তথ্য পেতে চান। ওয়েবসাইট ভিজিট করে জেনে নেবেন।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button