উৎসব

১৫ আগস্ট ভাষণ [ছাত্রলীগের জাতীয় শোক দিবস ভাষণ] এখান থেকে দেখুন

আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই অনেক ভাল আছেন। আপনারা কি 15 আগস্ট  সম্পর্কে জানতে আগ্রহী? যদি আপনারা 15 আগস্ট সম্পর্কে জানতে আগ্রহে থাকেন তাহলে আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের জন্য।

কারন আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টটিতে শেয়ার করেছি 15 আগস্ট এর ভাষণ। যদি আমাদের এই পোস্টটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়েন তাহলে আপনারা 15 আগস্টের ভাষণ পড়তে পারবেন।

15 আগস্ট হচ্ছে বাঙালি জাতির জীবনের খুবই দুঃখময় একই দিন। এই দিনে বাঙালি জাতি তাদের মহান এক নেতাকে হারায়। যার নাম হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। 15 আগস্ট বাঙালির একটি কালো রাত হিসেবে পরিচিত।

15 আগস্টকে বাঙালির জাতীয় শোক দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাংলার নন তিনি সারা বিশ্বের একজন মহান নেতা। তার হাত ধরে আসে বাঙালি জাতির স্বাধীনতা।

তিনি হচ্ছেন বাংলার স্বাধীনতার রূপকার। বাংলার স্বাধীনতা অর্জনে তার অবদান অপরিসীম। তিনি হচ্ছেন একজন আত্মত্যাগী ও সৎ, আদর্শবান নেতা। তিনি বাঙালি জাতিকে পশ্চিম পাকিস্তানিদের হাত

থেকে রক্ষা করার জন্য তাদের সাথে অনেক লড়াই করেন। 15 আগস্ট দিনটিতে বাঙালি জাতির জীবনে শোকের ছায়া নেমে আসে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান 1971 সালে 7ই মার্চের একটি ভাষণ দেন

এবং বাঙালি জাতিকে সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান জানান। যার মাধ্যমে সাধারণ জনগণ স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখতে শুরু করে এবং তাদের মধ্যে স্বাধীনতার চেতনা জাগ্রত হয় এবং তারা পশ্চিম পাকিস্তানিদের

সাথে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে স্বাধীন করে। 15 আগস্ট বাঙালি জাতির জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও দুঃখময় একটি দিন বলে এই দিনটি উপলক্ষে অনেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিভিন্ন ধরনের বক্তৃতা

বা ভাষণ দিয়ে থাকে। এছাড়াও এই দিনটিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনিমজ্জিত করে রাখা হয়। আর এই 15 আগস্ট এর ভাষণ দেওয়ার জন্য অনেকে অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রবেশ

করে 15 আগস্ট এর ভাষণ পড়ে থাকে। আর তাই আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে 15 আগস্ট উপলক্ষে কতগুলো ভাষণ প্রকাশ করেছি। আপনারা যদি 15 আগস্ট উপলক্ষে বিভিন্ন ধরনের ভাষণ পড়তে চান?

তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটের অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। 15 ই আগস্ট হচ্ছে বাঙালির জাতীয় শোক দিবস কারণ। এই দিনটিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর সহ তার পরিবার এর সদস্যদেরকে একদল ঘাতক নৃশংসভাবে হত্যা করে।

এই দিনটিতে ঘাতকদের হাতে নিহত হয়েছিল মোট 26 জন। তাদের মধ্যে শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের সদস্যরা হচ্ছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার স্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা মুজিব,

বঙ্গবন্ধুর ছেলে শেখ কামাল, তার স্ত্রী সুলতানা কামাল, শেখ জামাল ও তার স্ত্রী রুজী জামাল, শেখ রাসেল। তাদের সবাইকে হত্যা করা হয় ধানমন্ডির 32 নম্বর বাড়িতে।

তার পরিবারের সদস্য ছাড়াও তার আরো কয়েকজন আত্মীয়-স্বজনদেরকে ওই দিনে হত্যা করা হয় বলে এই দিনটিকে বাঙালির জাতীয় শোক দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button