টেকনোলজি

স্টুডেন্ট পাসপোর্ট করার নিয়ম [এখানে ক্লিক করে দেখুন]

আপনারা যারা স্টুডেন্ট রয়েছেন । তারা যাতে চাচ্ছি যে কিভাবে স্টুডেন্ট পাসপোর্ট তৈরি করা যায় । আজকে আমরা এ নিবন্ধনের মাধ্যমে আপনাদের জানাবো । কিভাবে আপনার স্টুডেন্ট পাসপোর্ট তৈরি করবেন । শিক্ষার্থীদের জন্য পাসপোর্ট তৈরি করতে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয়।

আজকে আমরা এর মাধ্যমে আপনাদের সকল তথ্য উপস্থাপন করব। সুতরাং আপনারা দেশের বাইরে পড়াশোনা করার জন্য পাসপোর্ট কিভাবে তৈরি করবেন । সে প্রক্রিয়া আপনার আমাদের ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবেন ।

বর্তমান সময়ে আপনি দেশে যেখানে থাকুন না কেন।  আপনি ই পাসপোর্ট এর জন্য অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।  ডিজিটাল যুগে এখন সবকিছু ডিজিটাল হয়ে গিয়েছে । ই-পাসপোর্টের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হলে আপনাকে প্রবেশ করতে হবে www.epassport.gov.bd  এর মধ্যে।

স্টুডেন্ট পাসপোর্ট তৈরি করার নিয়ম আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব । আর্টিকেলটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।  দালাল ছাড়া পাসপোর্ট করার নিয়ম হলো একমাত্র অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করা ।

ই-পাসপোর্ট কত দিনে পাওয়া যায় তা বলতে গেলে আপনি দুইদিন থেকে সর্বোচ্চ 21 দিনের মধ্যে পাসপোর্ট হাতে পাবেন । এক্ষেত্রে  পাসপোর্ট ফি আলাদা হয়ে থাকে । পাঁচ বছর মেয়াদি পাসপোর্ট ডেলিভারি সর্বনিম্ন 4025 টাকা

এবং সর্বোচ্চ 8625 টাকা। অনলাইনে পাসপোর্ট তৈরি করতে হলে প্রথমে সোনালী ব্যাংকের নির্ধারিত ব্যাংকে টাকা জমা দিতে হবে। কেননা অনলাইনে ফরম পূরণ করার সময় টাকা জমা দেওয়ার তারিখ এবং সমাধানের রিসিভ নাম্বার উল্লেখ করতে হয়।

তাই ফরম পূরণের আগে টাকা জমা দিতে হবে 3 হাজার টাকা এবং জরুরী পাসপোর্ট করতে কত টাকা লাগবে রেগুলার পাসপোর্ট পেতে সময় লাগবে এক মাস । জরুরিভিত্তিতে পাসপোর্ট তৈরি করতে 15 দিনের মত সময় লাগবে।

18 বছরের নিচে এবং 65 বছরের উপরে সকল নাগরিকদের পাঁচ বছর মেয়াদি 48 পৃষ্ঠার পাসপোর্ট দেওয়া হয় । এছাড়া 18 বছরের উপরে এবং 18 বছরের নিচে সকল নাগরিকগণ 10 বছর মেয়াদি পাসপোর্ট পাবে।

আপনি যদি শুধুমাত্র একজন কর্মরত বা অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবী হয়ে থাকেন এবং বিদেশ গমনের জন্য সরকারি আদেশ  থাকে  হয় আপনি সাধারণ পাসপোর্ট পেতে পারেন ।

 এক্ষেত্রে আপনার সুবিধা হল পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়াই আপনি পাসপোর্ট পাবেন । রেগুলার ডেলিভারির সুবিধা পাবেন। এক্ষেত্রে আপনার কোন ধরনের ভেরিফিকেশন করার প্রয়োজন হবে না।

আপনারা জানেন যে,  সরকার ডিজিটাল যুগে এই পাসপোর্ট তৈরি করার পদ্ধতি শুরু করেছে । ঢাকায় পাঁচটি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস রয়েছে।  এখান থেকে অপ্রাপ্তবয়স্ক এবং প্রাপ্তবয়স্ক জনগণ পাসপোর্ট তৈরি করতে পারবে।

কয়েকটি ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা জমা দিয়ে যেমন ওয়ান ব্যাংক,  ব্যাংক এশিয়ার , ট্রাস্ট ব্যাংক,  সোনালী ব্যাংক,।   সাধারণ পাসপোর্ট এর ক্ষেত্রে 3000 টাকা এবং 450 টাকা ভ্যাট দিতে হবে । একটা সময় পেতে  লাগবে 21 দিন।

জরুরি করতে হলে ৬ হাজার টাকা ও ৯শ টাকা ভ্যাট। এটি পেতে সময় লাগবে ১১ দিন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আপনাকে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে। তারপর আপনি পাসপোর্টটি আনতে পারবেন।

আরও বিস্তারিত জানতে www.dip.gov.bd-এ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।তাহলে বন্ধুরা এ আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনাদেরকে জানিয়ে দিলাম । আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button