ইসলামিক

আকিকা করা কি সুন্নত এবং আকিকার মাসআলা (দেখুন এখানে)

আকিকা হচ্ছে আল্লাহ তায়ালার একটি ইবাদত। আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক পিতা-মাতাকে তার সন্তানের জন্য আকিকা দিতে বলেছেন। তাই আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টে আলোচনা করব আকিকা বিষয়ে।

আপনারা আকিকা দেওয়া কি ফরজ অথবা আকিকা করার নিয়ম এবং ছাগল দিয়ে আকিকার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? যদি আপনারা এই সকল বিষয় জানতে চান তাহলে এই পোস্টটি আপনাদের জন্য।

আমাদের এই পোস্টটি আপনারা যদি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়েন তাহলে আপনারা আকিকা দেওয়া কি ফরজ কিনা এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

এছাড়াও আপনারা জানতে পারবেন যে আকিকা করার নিয়ম এবং ছাগল দিয়ে আকিকার নিয়ম সম্পর্কে। পিতা মাতার প্রতি সন্তানের যেমন দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে তেমনি পিতা-মাতারও সন্তানের প্রতি কিছু দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে।

এই সকল দায়িত্বের মধ্যে আকিকা দেয়া হচ্ছে পিতা মাতার  গুরুত্বপূর্ণ একটি দায়িত্ব। ইসলামী শরীয়তে আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক মুসলমান ব্যক্তিকে তার সন্তানের জন্য আকিকা দিতে বলেছেন।

আকিকা কি ফরজ এবাদত নাকি সুন্নত এবাদত নাকি ওয়াজিব এবাদত এ বিষয়টি নিয়ে অনেকের মধ্যে প্রশ্ন থাকে। আর এর উত্তর জানার জন্য অনেকেই অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে এর অনুসন্ধান করে থাকে।

তাই আমরা এই পোস্টে আকিকা দেওয়া কি ফরজ ইবাদত কিনা এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আকিকা দেওয়া কোন ফরজ এবাদত নয়। এটা হচ্ছে সুন্নত এবাদত। যা সুন্নতে মুয়াক্কাদা।

প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাদের সন্তানের মঙ্গল কামনায় বা নিরাপত্তার জন্য আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে আকিকা দিতে হবে। কেউ যদি আকিকা না দেয় তাহলে সেটি আল্লাহ তায়ালার সুন্নত এবাদত বিরোধী কাজ হবে।

তাই আমাদের প্রত্যেক মুসলমান ব্যক্তির উচিত সন্তানের আকিকা দেওয়া। আকিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে আল্লাহ তায়ালা কিছু নিয়মকানুন অনুসরণ করতে বলেছেন। এই নিয়ম অনুযায়ী যদি কেউ আকিকা না দেয়

তাহলে তার আকিকা শুদ্ধ হবে না। তাই আমাদের আকিকা দেওয়ার আগে অবশ্যই জেনে নেওয়া উচিত আকিকার সঠিক নিয়ম সম্পর্কে। আকিকা হচ্ছে সন্তান জন্মগ্রহণে আনন্দের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে শুকরিয়া

হিসেবে আল্লাহর রাস্তায় পশু কোরবানি করা। ছেলে এবং মেয়ে সন্তান দুজনের জন্য আকিকা দিতে হয়। আল্লাহ তায়ালা আকিকা দেওয়ার কিছু সময় নির্ধারণ করে দিয়েছেন।

আমাদের নবী করীম হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন কারো যদি সন্তান জন্মগ্রহণ করে তাহলে সে যেন সন্তান জন্মের সপ্তম দিনে আকিকা দেয় এবং সন্তানের সুন্দর একটি নাম রাখে।

সেই সাথে সন্তানের চুল কেটে ফেলে সেই চুলের ওজন পরিমাণ রুপা গরিবদেরকে সদকা করে। সন্তান জন্মের সপ্তম দিনে আকিকা দেওয়া সুন্নত। আকিকার পশু জবাই এর ক্ষেত্রে বা পশু কুরবানী দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু নিয়মকানুন রয়েছে।

আর এই নিয়ম সম্পর্কে অনেক মুসলিমরাই অবগত নয়। তাই আমরা এই পোস্টে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আমাদের নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম

প্রত্যেক ব্যক্তিকেই ছাগল দিয়ে সন্তানের আকিকা দেওয়ার কথা বলেছেন। ছাগল দিয়ে আকিকা দেওয়া হলে নবীর সুন্নত তরীকা পালন করা হয়। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরো বলেছেন,

কারো যদি পুত্র সন্তান জন্মগ্রহণ করে তাহলে সেক্ষেত্রে তাকে দুটি ছাগল কুরবানী করতে হবে। আর কারো যদি কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করে তাহলে সে ক্ষেত্রে তাকে একটি ছাগল কুরবানী করতে হবে।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button