টেকনোলজি

টিন সার্টিফিকেট করতে কত টাকা লাগে এবং কি কাজে লাগে [এখানে দেখুন]

টিন নাম্বার দিয়ে টিন সার্টিফিকেট বের করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট এর গুরুত্ব বলে শেষ করা যায় না।আপনাদের মধ্যে অনেকেই টিন সার্টিফিকেটের উপকারিতা জানেন না। অনেক সময় কোন মালামাল আমদানি করার ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। সে ক্ষেত্রে টিন সার্টিফিকেট দরকার।

এছাড়াও যে কোন ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করার জন্য টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়। আপনি যদি কোন ছোটখাটো ব্যবসা করতে চান তবে সে ক্ষেত্রেও টিন সার্টিফিকেট দরকার। এছাড়াও যেকোনো জমি

বা ভবন রেজিস্ট্রেশন করার জন্য টিন সার্টিফিকেটের প্রয়োজন রয়েছে। আজকের আর্টিকেলে টিন সার্টিফিকেট সম্পর্কিত অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সুতরাং আপনারা পোষ্টের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

আশা করি প্রত্যেকে উপকৃত হবেন। একজন বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে প্রত্যেকের জন্য টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। প্রতিটি নাগরিকের উচিত টিন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করা।

বর্তমানে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে হলে কর অফিসে যেতে হয় না। ঘরে বসেই নিজে নিজে টিন সার্টিফিকেট বানানো যায়। এর জন্য শুধুমাত্র মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ থাকা প্রয়োজন।

কর অফিসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ঢুকে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করা যায়। আপনাদের মধ্যে অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন টিন সার্টিফিকেট করতে কত টাকা লাগে। বলে রাখা ভালো যে টিন সার্টিফিকেট করতে

কমপক্ষে ১০০ থেকে ২০০ টাকা লাগতে পারে। এটি অনলাইনে ফী হিসেবে দিতে হয়। আশা করি আপনারা যারা যারা টিন সার্টিফিকেট তৈরি করেননি তারা যথাসময়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করে নিবেন।

সুতরাং আমি বলতে পারি আজকের পোস্টটি আপনাদের প্রত্যেকের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অনেকে টিন সার্টিফিকেট অনলাইনে ডাউনলোড করতে পারে না। তাই আজকের আর্টিকেলে টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করার নিয়ম নিয়ে

আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করতে চান তবে অবশ্যই –https://incometax.gov.bd ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করতে হবে।

এরপর রেজিস্ট্রেশন নামে একটি অপশন দেখা যাবে সেখানে ক্লিক করতে হবে। রেজিস্টার বাটনে ক্লিক করার পর একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। এরপর তথ্যগুলো পূরণ করা হলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে

যদি আপনার তথ্যগুলো সঠিক হয় তবে তারা আপনাকে টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করার জন্য অনুমতি দিবে। এরপর আপনি ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে খুব সহজেই টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করে মোবাইলে রাখতে পারবেন।

আশা করি আপনারা যারা যারা টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করতে জানেন না তারা নিজেরা ডাউনলোড করতে পারবেন। আপনারা চাইলে টিন সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবেন।

আপনারা অনেক সময় টিন সার্টিফিকেট যাচাই করার নিয়ম জানেন না। তাই আজকের আর্টিকেলে টিন সার্টিফিকেট কিভাবে যাচাই করতে হয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

প্রথমে মোবাইল অথবা কম্পিউটারের ব্রাউজার অপশন দিয়ে কর অফিসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। এরপর রেজিস্ট্রেশন অপশনে ক্লিক করতে হবে।

এই অপশনটিতে যে যে তথ্য চাওয়া হবে তা সঠিকভাবে বসাতে হবে এরপর কোড ভেরিফাইড করতে হবে। এরপর আপনাকে যা করতে হবে তা হল পাসওয়ার্ড সেট করতে হবে।

সবশেষে যাচাই অপশন এ ক্লিক করতে হবে। সেখানে আপনি সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবেন। আশা করি আপনারা যারা যারা যাচাই করার নিয়ম জানতেন না তারা এখন নিজেরাই করতে পারবেন।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button