স্বাস্থ্য

সর্দি থেকে মুক্তির উপায় [ক্লিক করে] ঘরোয়া উপায় দেখে নিন

ঋতু পরিবর্তনের কারণে অনেকের সর্দি লেগে থাকে। আবার আমাদের মধ্যে অনেকেরই একটু ঠান্ডা লাগলে বা বেশিক্ষণ পানিতে থাকলে শরীরে সর্দির প্রভাব লক্ষ্য করা যায়। কিছু সময় ভাইরাসজনিত কারণেও সর্দি হতে পারে।

আজকে আমরা সর্দি থেকে মুক্তির উপায়, ঘন ঘন সর্দি লাগা কিসের লক্ষণ, নাকের সর্দি কমানোর উপায় যে সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। লেবুর জলে 1 চা-চামচ মধু মিশিয়ে পান করলে সর্দি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

মধু শ্বাসযন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করে এমনকি মধু বুক থেকে কফ শ্লেষ্মা দূর করে গলা পরিষ্কার করে।  সর্দি কমাতে ভিটামিন সি এর ভালো কার্যকারিতা রয়েছে ভিটামিন-সি সর্দির ফলে যে সমস্যা সৃষ্টি হয় তা কমিয়ে দেয়

এবং সর্দির সময়কাল ও কমিয়ে দেয়। ভিটামিন সি এর মত জিংক ও সর্দি কমাতে এবং সর্দি থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে সাহায্য করে। সর্দি থেকে দ্রুত সুস্থ হতে হলে শরীরকে সবসময় হাইড্রেট রাখতে হবেএজন্য আমাদের গরম চা,

পানি ও অন্যান্য তরল পদার্থ বেশি বেশি পান করতে হবে এবং এ অবস্থায় ক্যাফেইন ও অ্যালকোহল যুক্ত পানীয় বর্জন করতে হবে কারণ, এগুলো শরীরকে ডিহাইড্রেড করে ফেলে।

হট সেলাইন লবন বেকিং সোডা ও গরম পানি দিয়ে তৈরি করে। সেই স্যালাইন দিয়ে নাক পরিষ্কার করে সর্দির উপসর্গগুলো দ্রুত কমানো যায় এই স্যালাইন দ্রুত নাকের জ্যাম দূর করে পাশাপাশি ব্যাকটেরিয়া

ও ভাইরাসের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে সর্দি কাশি ও জ্বর উপশমে আমাদের অতিরিক্ত বিশ্রামে থাকতে হবে। মনে রাখতে হবে ঘরোয়া উপায়ে ভালো ফল না পাওয়া গেলে অবশ্যই একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে

হাঁচি-কাশির সময় রুমাল বা টিস্যু ব্যবহার করতে হবে যাতে পরিবারের অন্য কেউ আক্রান্ত না হয়। এক কাপ পানিতে দু তিন কোয়া রসুন কুচি নিয়ে এর সঙ্গে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে নাক পরিষ্কার হয়ে যাবে।

রসুন চিবিয়ে খেলেও ভালো উপকার পাবেন। অ্যাপেল সিডার ভিনিগার এর সঙ্গে 1 টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে খেলে মিউকাস  পরিষ্কার হবে এতে সর্দি সম্পূর্ণ সেরে যাবে। পানির মধ্যে জোয়ান গুঁড়ো মিশিয়ে

সে সেই জলের শ্বাস নিন এতে বন্ধনা খুলে যাবে মাথা হালকা লাগবে। দু কাপ গরম জলে একটা চামচ নুন মিশিয়ে নিন এই জল নাক দিয়ে টানতে থাকুক নাক পরিষ্কার হয়ে যাবে।

নাকের মিউকাস পরিষ্কার করতে হারবাল চা খান নাক পরিষ্কার হয়ে যাবে। শরীর থেকে টক্সিন দূর হবে হাতের তালুতে অল্প পরিমাণে গোলমরিচ গুঁড়ো নিয়ে সামান্য সরিষার তেল দিন আঙ্গুলে লাগিয়ে নাকের কাছে দরুন হাঁচি হবে

সেইসঙ্গে নাক পরিষ্কার হয়ে ঝর ঝরে লাগবে। গরম জলের ভাপ নিতে পারেন পরিষ্কার কাপড় গরম জলে ভিজিয়ে মুখের উপর 10 থেকে 15 মিনিট চেপে দিয়ে রাখুন গরম জলে স্নান করলে উপকার পাবেন।

ভিন্ন কারণে ঘন ঘন সর্দি হয় যেমন ধুলাবালি, ফুলের রেণু ,হঠাৎ ঠান্ডা -গরমের মিশ্রন, অতিরিক্ত গরম, অতিরিক্ত ঠান্ডা, আবহাওয়া পরিবর্তন, তাড়াশ রান্নার গন্ধ, মসল্লা খাবারের গন্ধ,

এলার্জি খাবার ইত্যাদিএগুলো সর্দির কারণ হতে পারে। এই রোগের কোন নির্দিষ্ট বয়স সিমা মানেই সকল বয়সের মানুষের রোগ হয়ে থাকে। সর্দি কোনো সংক্রামক রোগ নয় বরং তৎক্ষণাৎ বা হঠাৎ এই উপসর্গ দেখা দেয়  আগের দিনের মনে করা হতো খর

বা পেঘ্রাণ থেকে এই রোগের উৎপত্তি। আসলে এই রোগ দেখা দেয় পুষ্পরেণু থেকে যা শরীরে প্রবেশের সময় রোগ প্রতিরোধ মূলক শক্তি একটা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে  কারো বেলায় চোখ এবং নাকের বাতাস চলাচলের রাস্তা আক্রান্ত হয়।

Bangla Master

Bangla Master ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আপনাদেরকে স্বাগতম। এই ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা বিষয়ক তথ্য আপনি জানতে পারবেন। স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত সকল আপডেট তথ্য এই ওয়েবসাইটে নিয়মিত দেয়া হয়ে থাকে। আপনাদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরি বিষয়ক তথ্যগুলো আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছি।
Back to top button